‘প্রকৃতিই শিল্পের বুনন’ - ফরিদা জামান

যাঁর জীবনদর্শনে প্রকৃতির সরলতা পায় ভিন্ন মাত্রা, তিনি শিল্পী ফরিদা জামান। আঁকেন বাস্তব বিষয়ভিত্তিক চিত্র। সেখানে বিমূর্ততাও ছুঁয়ে যায় কখনো কখনো। নিজস্ব একটি ঢঙে, একটি বিশেষ ফর্মে ক্যানভাস পায় নিখুঁত বাস্তব পরিসর। প্রকৃতিকে উপলব্ধি করেন একান্ত নিজের মতো করে। মাছ, জাল, জলের অনন্ত বুদ্বুদ যেন শিল্পের এক নতুন খোলা দ্বার। মাছ, জাল বাঙালির চিরন্তন সত্তা। নদীমাতৃক বাংলাদেশ ও জেলেজীবনের সংগ্রাম গাঁথা হয়ে পড়ে জীবনমুখী এই শিল্পীর ক্যানভাসে। শিল্পীর বিশেষ দৃষ্টি যখন জল ও জালের দিকে, তখন বুঝি মাছের গন্ধেই গুটি গুটি পায়ে এসে দাঁড়ায় বিড়াল। তাঁর অঙ্কন নারী জীবনের আশা ও দিগন্ত নাড়িয়ে দেয় ক্যানভাসের বুক কাব্যিক ছন্দে। তাঁরই ধারাবাহিকতায় ক্যানভাসে সৃষ্টি হয় কালো রঙের, পাতলা, লম্বাটে গড়নের সংগ্রামী এক নারী চরিত্র ‘সুফিয়া’র। লাল, হলুদ, মেটে, নীল রঙের ব্যবহার করেন পরিশীলিত উপায়ে। ভালোবাসেন জলরঙের স্বচ্ছতা। শিল্পে কেবল দুঃখ নয়, বরং সৃষ্টির আসল জায়গা থেকে আনন্দ, স্নিগ্ধতারই প্রাধান্য যেন বেশি। দেশ ও প্রকৃতি এবং এদেশীয় সংস্কৃতির প্রতি দায় তার সৃষ্ট শিল্পকে করে তোলে মানবিক বোধে উদ্দীপ্ত। প্রকৃতিই ফরিদা জামানের শিল্পের বুনন।